ফার্মেসী -এর চিকিৎসাকে না বলুন

Sharing is caring!

ডা. জোবায়ের আহমেদ
_____________________________

কেইস ১

জনাব আফতার হোসেন, বয়স, ৫৯,
জকিগঞ্জ এর বিরশ্রী ইউনিয়ন এর উজিরপুর থেকে আমার কাছে এসেছেন খাবারে অরুচি, বমি বমি ভাব,কিছু খেলে বমি হয়ে যাওয়া,খাওয়ার পর পেটে ব্যাথা এবং মাথা ঘুরানো ও খুবদুর্বলতা নিয়ে।।
স্থানীয় ফার্মেসী থেকে তথাকথিত গ্যাস্ট্রিক বলে গ্যাসের বড়ি ও ডমপিরিডন খেয়েছেন কয়েকমাস ধরে।।সাথে ভিটামিন ফাইল।।
ক্লিনিকাল পরীক্ষা করে দেখি severe anaemia হিমোগ্লবিন ৫.৫ gm/dl.
তিন ব্যাগ ব্লাড ট্রান্সফিউশন করে রক্তশূন্যতা কারেকশন করে কেন রক্ত কমে গেল সেই কারণ বের করার জন্য UPPER GI ENDOSCOPY করাই।
রিপোর্ট এ পাকস্থলীর ক্যান্সার ধরা পড়ে।।
কোন সমস্যাই ছোট নয়।।
খাবারে অরুচি,বমি বমি ভাব ও ক্যান্সার এর উপসর্গ হতে পারে।।।
কিছু হলেই ফার্মেসী থেকে বলে ঔষধ খাওয়ার অভ্যাস ত্যাগ করুন।।
আপনি সচেতন হলেই বেঁচে যায় আপনার প্রিয়জন।।

 

কেইস ২

জনাব মো : মইন উদ্দিন, বয়স ৬০
এসেছেন আমার কাছে পরচক,জকিগঞ্জ থেকে।বমি বমি ভাব,খাবারে অরুচি, খাবার খেতে কষ্ট হয়,খাবার বুকে আটকে থাকে যেটাকে মেডিকেলীয় ভাষায় ডিসফ্যাজিয়া বলা হয়ে থাকে।।
দীর্ঘ ছয় থেকে সাত মাস ধরে এই সমস্যায় ভুগছিলেন।
স্থানীয় বাজার এর বিভিন্ন ফার্মেসী থেকে তথাকথিত গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা বলে অনেক ঔষধ। খেয়েছেন।।।
আমার কাছে আসার পর রোগী দেখে আমার ইসোফেজিয়াল ক্যান্সার (খাদ্য নালীর) মনে হলে upper GI endoscopy করাই।
এবং আমার ক্লিনিক্যাল সন্দেহ টা সঠিক হয়।।
রোগীর খাদ্যনালীর ক্যান্সার ধরা পড়ে।।।

অনেক মানুষ প্রচুর পরিমানে পান সুপারি খায় যেটাকে স্থানীয় ভাষায় গুয়া পান খাওয়া বলা হয়।।
অনেক রুগী কে পান খাওয়ার জন্য নিষেধ দিলে বলে ভাত না খেয়ে থাকতে পারবেন কিন্ত গুয়া পান ছাড়া যাবে না।।অনেক রোগীরা বলেন গুয়া পান খেয়ে উনারা ঠেকে গেছেন,পান ছাড়া অসম্ভব।।।।

মেডিকেল সায়েন্স গবেষনা করে প্রমান করেছে খাদ্যনালীর ক্যান্সার (Oesophagial carcinoma) এর অন্যতম কারন এই পান সুপারি বা গুয়া পান খাওয়া।।
পান সুপারি অরাল ক্যান্সার এরও কারন।

#কেইস ৩

জনাব আব্দুল লতিফ,বয়স,৬০, আমার কাছে এসেছেন কাশি নিয়ে।।
গত তিন চার মাস ধরে কাশি।। ফার্মেসী থেকে কিনে অনেক কফ সিরাপ খেয়েছেন কিন্তু কিছুতেই কাশি না কমায় আমার কাছে আসেন।।
আমি উনার কাশির কারন হিসেবে TB রোগ নির্নয় করে দেই।।।
কাশি হলেই ফার্মেসী থেকে কফ সিরাপ খাওয়া কোন সমাধান নয়।।
কাশির আছে ভিন্ন ভিন্ন কারন।।সাধারণত ফ্লু বা ভাইরাস জনিত কাশি হলে তা এমনিতেই সেরে যায়।।

কিন্ত যক্ষা,এ্যাজমা,এলার্জি, নিউমোনিয়া, সিওপিডি, ব্রংকাইটিস, ব্রংকিয়াক্টাসিস,ফুসফুসের ক্যান্সার, ফরেন বডির জন্য যেই কাশি হয় তার যথাযথ চিকিৎসা আছে।।
একজন অভিজ্ঞ চিকিৎসক সেই কাশির কারন বের করে যযথাযথ চিকিৎসা দিতে পারবেন।।।
এক ধরনের হাই প্রেসারের ঔষধ আছে যাদের কে এসিই ইনহিবিটর বলা হয়,সেই ঔষধ গুলোর জন্য ও কাশি হতে পারে।।
এখন এই সব ঔষধ। এর জন্য কাশি হলে কফ সিরাপ নয়,এই ঔষধটি বন্ধ করে দিয়ে অন্য প্রেসারের ঔষধ খেতে হয়।।।
আবার এসিড রিফ্লেক্স বা GERD যেখানে বুক জ্বলা, ঢেকুর উঠা,মুখে পানি আসার পাশাপাশি কাশি হয়।।

আপনার কাশির সাথে রক্ত গেলে,শ্বাস নিতে কষ্ট হললে,অল্প মাত্রায় জ্বর থাকলে,বেশি মাত্রায় জ্বর থাকলে,বুকে ব্যাথা হলে,ওজন কমতে থাকলে দ্রুত একজন গ্রাজুয়েট চিকিৎসক কে দেখাতে হবে।।।

বাজারে প্রচলিত কফ সিরাপ গুলোর অনেক ক্ষতিকর দিক আছে যেমন ঝিমুনি,বেশি বেশি ঘুম,খিচুনি, পালপিটেশন,কিডনি ও লিভার এর নানা ক্ষতি করতে পারে।।।
অনেক কফ সিরাপ নেশা তৈরী করে।।
সুতরাং কাশি হলেই কফ সিরাপ খাওয়া বন্ধ করুন।।
চিকিৎসক এর পরামর্শ নিয়ে কাশির যথাযথ কারণ নির্নয় করে সুচিকিৎসা নিন।।

#কেইস ৪
জনাব ওয়াসীর আলী, বয়স ৭০
জকিগঞ্জ এর বারহাল ইউনিয়ন এর মনতইল গ্রামের অধিবাসী।।।আমার কাছে আসেন
তিন মাস ধরে শ্বাস নিতে কষ্ট হয়, শুইলে দম বন্ধ হয়ে যায়, যেটাকে মেডিকেল এর ভাষায় orthopnoea বলা হয় এবং এটা হার্ট ফেইল্যুর এর সিম্পটোম।।
চাচার মাঝে মাঝে মুখ ও পা ও ফুলে যেত।।।

তিনি স্থানীয় বাজার এর বিভিন্ন ফার্মেসী থেকে কয়েক ধরনের ইনহেলার ইউজ করেন কিন্ত দিন দিন অবস্থা খারাপ হওয়ায় আমার কাছে আসেন।।।
আমি রোগী দেখে, ক্লিনিক্যাল এক্সামিনেশন করে বুঝতে পারি এটা heart failure এর কেইস।।।
তারপর যথাযথ Investigation করাই এবং আমার ডায়াগনোসিস নিশ্চিত হয়।।।
শ্বাস কষ্ট হলেই ফার্মেসী থেকে বলে ইনহেলার ইউজ না করে না করে একজন রেজিস্টার্ড চিকিৎসক এর মতামত নিন।

ডা. জোবায়ের আহমেদ ।সুলেখক। সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ৪২ ব্যাচ।

Facebook Comments
shares